Image

অপূরূপ সৌন্দর্যের খোজে আমিয়াখুমের পথে

অপূরূপ সৌন্দর্যের খোজে আমিয়াখুমের পথে

 

প্রাকৃতিক সৌর্ন্দয্যের অবারিত সবুজের সমারোহ এবং মেঘে ছুঁয়ে যাওয়ার স্থান হচ্ছে বাংলাদেশের পাহাড়ী কন্যা বান্দরবান। মারমা ভাষায় খুম শব্দের অর্থ জলপ্রপাত, রেমাক্রি থেকে উচুনিচু টিলা এবং নাফাকুম ঝর্ণার পানির প্রবাহ অতিক্রম করে আমিয়াখুম যেতে আপনার ০৬ – ০৮ ঘন্টা সময় লাগতে পারে। 

 

যেভাবে যাবেনঃ

 

চট্রগ্রাম থেকে বান্দরবনগামী বাসে করে বান্দরবান বাস টার্মিনালে পৌছাতে হবেজনপ্রতি বাস ভাড়া ১১০ টাকা। বান্দরবান থেকে বাস/ জীপ গাড়িতে করে থানচি পৌছে যাবেনজনপ্রতি বাস ভাড়া ২০০ টাকা এবং জীপ ভাড়া ৪০০০-৬০০০ বিশেষ কোন উত্সবকে ঘিরে ভাড়া আরো বেশি হতে পারে।

 

থানচি থেকে চারপাশের পাহাড়নদীর মাঝে সুবিশাল বড় বড় পাথরের মাঝে একে বেকে নৌকা মাধ্যমে পৌছে যাবেন রেমাক্রিতেনৌকা ভ্রমণে খরচ পড়বে ৪০০০- ৫০০০ টাকাউল্লেখ্য যে নৌকাটি আপানাকে ফিরিয়ে নিতে আসবে আবারতাই ভ্রমণের সময়সুচী অনুযায়ী তাকে জানিয়ে দিন কবে কোথায় আসতে হবে। এইসব ক্ষেত্রে গাইডের উপর ভরসা করতে পারেনসে নৌকোর মাঝিকে ফিরিয়ে নিয়ে যাবার সময় জানিয়ে দিবে।

 

রেমাক্রিতে কিছুক্ষন বিশ্রাম নিয়ে নাফাকুমের ঝর্ণার উদ্দেশ্য হাটা শুরু করুনআনুমানিক আড়াই থেকে তিন ঘন্টা হাটলে নাফাকুম ঝর্ণার দেখা পেয়ে যাবেন। নাফাকুম ঝর্ণার পাশের গ্রামে রাত্রি যাপন করেখুব সকাল সকাল থুইসাপাড়া অথবা জিনাপাড়ার উদ্দেশ্য রওনা হয়ে যাবেন। প্রায় তিন থেকে চার ঘন্টার মধ্যে পৌছে যেতে পারবেনচেষ্টা করবেন থুইসাপাড়ায় থাকারএই পাড়ার মানুষদের আথিয়েতা চোখে পড়ার মতো।

 

থুসাইপাড়া/ জিনাপাড়া থেকে নতুন একজন গাইড নিতে হবেআপনার পুরনো গাইডই আপনাকে নতুন গাইড ঠিক করে দিবে। প্রায়ই তিন থেকে সাড়ে তিন ঘন্টার মধ্যে পৌছে যাবেন আপনার কাঙ্ক্ষিত আমিয়াখুম ঝর্ণা। আমিয়াখুম যাবার পূর্বে দেবতাপাহাড় আপনাকে এই ভ্রমণের সর্বশেষ্ঠ রোমাঞ্চই অনুভব করিয়া দিবে। আমিয়াখুম দেখে ফিরে এসে রাত্রীযাপন করতে পারেন থুইসাপাড়া / জিনপাড়ায়। তারপর ভোর সকালে আগের রাস্তায় ফিরে যেতে পারেন থানচি এবং বান্দরবান।

 

খরচসমূহঃ

 

চট্টগ্রাম বদ্দারহাট বাস টার্মিনাল থেকে বান্দরবান নন এসি বাস খরচ জনপ্রতিঃ ১১০ টাকা

বান্দরবান থেকে থানচি বাস খরচ জনপ্রতিঃ ২০০ টাকা (জীপ ভাড়া ৪০০০-৬০০০ টাকা)

থানচিতে পর্যটন অফিসের গাইড ফরম ১০০ টাকা

গাইড খরচ ৫০০০ টাকা (ভেলাখুমের গাইড এবং ভেলা খরচ অন্তর্ভুক্ত)

নৌকা খরচ ৩০০০-৫০০০ (সরকারী ছুটির দিনে নৌকা ভাড়া বেড়ে যায়)

লাইফজ্যাকেট প্রতিদিন জনপ্রতি ৫০ টাকা

খাবারখরচ জনপ্রতিঃ ১৫০ টাকা (প্রতিবেলা)

রাত্রীযাপন জনপ্রতিঃ ১৫০ টাকা

মুরগীর বারবিকিউ করতে পারেন ইচ্ছে করলে সে ক্ষেত্রে খরচ পড়বে ৪০০-৫৫০ টাকা (গাইডের মাধ্যমে আগেই জানিয়ে দিতে হবে যদি রাতে বারবিকিউ করতে চান)

  •  অপূরূপ সৌন্দর্যের খোজে আমিয়াখুমের পথে
  •  Bangladesh
  •  Bandarban
  •  Bus
  •  পাহাড়ীদের বাড়িতে রাত্রীযাপন, জনপ্রতি ১৫০ টাকা
  •  পাহাড়ীদের বাড়িতে খাবার পেয়ে যাবেন, জনপ্রতি প্রতি বেলা ১৫০ টাকা খরচ পড়বে।

0 comments

Leave a comment

Login To Comment