Image

(Chittagong,Antu Chowdhury,Blog)

২৩ ডিসেম্বর,২০১৮
যাক সকালটা হয়ে গেল!ঠাণ্ডা লাগছে একটু..গাড়ি চলা শুরু করেছে!পাহাড় দেখতে খুব ভালো লাগে..ঘুরতে খুব ভালো লাগে!
তাই যাচ্ছি,একটুখানি মুগ্ধ দৃষ্টি..একটুখানি বিশুদ্ধ বাতাস..আর,নীলগীরি,নীলাচল,শৈল প্রপাত,চিম্বুক,মেঘলা,রামজাদি,স্বর্ণমন্দির,সাঙ্গু নদী এর সৌন্দর্যরূপ দেখতে..!
.
চট্টগ্রামের বদ্দারহাট থেকে আমরা যাত্রা শুরু করে দিলাম বাসে!আঁকা-বাঁকা বাংলার সৌন্দর্যময় রাস্তার আমরা ছুটে চলছি!প্রায় ৩ ঘন্টার মধ্যেই পৌঁছে গেলাম বান্দরবন!তারপর,২টায় যাত্রা শুরু করে দিলাম ১টা চাঁদের গাড়ি নিয়ে,যেখানে সর্বোচ্চ ১২ জনের জায়গা হয়..ভাড়া নির্ধারিত হলো ১৮০০টাকা…যাবো স্বর্ণমন্দির আর,নীলাচলের উদ্দেশ্যে!চাঁদের গাড়ি বান্দরবনের সৌন্দর্যরূপ আরো বাড়িয়ে দিলো!অবাক দৃষ্টি নিয়ে এসে গেলাম স্বর্ণমন্দিরের দরজায়!সেখানে প্রবেশ করতে প্রবেশমূল্য লাগে জনপ্রতি ৫০টাকা..যেটার পুরা অর্থ ব্যয় করা হয় বিভিন্ন সেবামূলক কাজে!মন্দিরে কিছুক্ষণ থেকে যাত্রা শুরু করলাম নীলগিরির পথে!মাঝে সাঙ্গু নদীর দেখা পেয়ে গেলাম!নীলগিরি তে যাওয়ার রাস্তায় চিল্লা-চিল্লি,গানগুলো আমাদের ভ্রমণ আনন্দ আরো বাড়িয়ে দিলো!নীলগিরিতে প্রবেশমূল্য জনপ্রতি ৫০টাকা,প্রবেশ করেই অনেক সুন্দর সুন্দর জায়গা দেখতে পেলাম,সাথে সাথেই ছবি তোলার জন্য তৈরি হয়ে গেলো সবাই!আস্তে-আস্তে সন্ধ্যা নেমে আসলো!নীলগিরির মতো এতো সুন্দর সন্ধ্যা আমার জীবনে কমই এসেছিলো!জীবনটা কত উপভোগ্য সেদিনই বুঝতে পেরেছিলাম!সেখানে আড্ডায় কেউ ধরে ফেললো “মান্না দে” এর গাওয়া প্রিয় গানগুলো!সন্ধ্যা ৭টার দিকে ব্যাক করলাম!তারপর,গেলাম একটু চাকমা বাজার ঘুরতে!রাত ৯ টা করে ফিরে আসলাম বন্ধুর বাসায়..আগেই ঠিক করা ছিলো সেখানে থাকবো!যার কারণে ট্যুরের অনেক বড় একটা খরচ হোটেল ভাড়া বেঁচে গিয়েছিলো!পরেরদিন সকাল ৫.৩০টায় যাত্রা শুরু করলাম নীলগিরির উদ্দেশ্যে…সেখানেও চাঁদের গাড়ি…ভাড়া নির্ধারিত হলো ৪০০০টাকা!শীতের কুয়াশার চাদর এতো সুন্দর এই রাস্তায় না গেলে বুঝতাম না!প্রায় ২ ঘন্টার প্রায় ২৫০০ ফুট উপরের মেঘের উপরের রাস্তাটা আমার আজীবন গল্প করে বেড়ানোর জন্য যথেষ্ট!মেঘের মাঝে গাড়ি,দু’পাশে পাহাড়…যেখান থেকে মনে হচ্ছিলো মেঘ আমাদের অনেক নিচে!চাঁদের গাড়িতে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে যাওয়া,সাথে গান…এতো জোস লাগছিলো!চলে গেলাম নীলগিরিতে,প্রবেশমূল্য ৬০টাকা প্রতিজন! নীলগিরি থেকে ও নীলগিরি যাওয়ার রাস্তাটার কথাই এই ট্যুরে বেশী মনে থাকবে!সেখানে ১.৩০ঘন্টার মতো সময় কাটিয়ে উঠে গেলাম গাড়িতে! ফিরে আসার পথে চাঁদের গাড়ি থামাইয়া ঘুরে দেখলাম চিম্বুক আর,শৈল-প্রপাত!সেখানে কিছু উপজাতিদের হাতে তৈরি জিনিস নিয়ে তারা বসেছে ছোট্ট দোকান!কিছু জিনিস কিনলাম তাদের হাতে বানানো! দুপুর ১ টা করে ফিরে আসলাম! মোটামুটি এই ছোট্টখাট্টো ট্যুর শেষ! এবার ফেরার পালা…তবে মনে রাখার মতো একটা ট্যুর!আমার বাংলাদেশ কতো সুন্দর তা অনুভব করা খুব দরকার আগে সবার!

  •  মেঘ পাহাড়ের দেশে!
  •  Bangladesh
  •  Bandarban,Chittagong,Bangladesh
  •  Others
  •  Nilachal Escape Resort
  •  বাঙালিয়ানা খাবার

0 comments

Leave a comment

Login To Comment