Image

ভ্রমণ ট্রিপ

লাঙ্গলবন্দ

নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানার ব্রহ্মপুত্র নদে ‘লাঙ্গলবন্দ’ স্নান পুরো উপমহাদেশে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছেই পবিত্র এক বিষয়। সুদর্শন পঞ্জিকা অনুযায়ী ২৬ মার্চ দিবাগত শেষরাত্রি ৫/৪৮/৪৭ সেকেন্ড থেকে স্নান শুরু হয়ে চলেতে থাকে ২৭ মার্চ দিবাগত শেষরাত্রি ৫/৫৯/৩৮ সেকেন্ড পর্যন্ত। এ তিথিতে ‘লাঙ্গলবন্দে’ দেশ-বিদেশের বহু পুণ্যার্থী, সাধু-সন্তের আগমন ঘটে বলে ‘লাঙ্গলবন্দ মহা তীর্থ’ এর খ্যাতি পুরো দেশ জুড়ে।

 

বিশ্ববরেণ্য দার্শনিক ও আধ্যাত্মিক ধর্মগুরু ড. মহানামব্রত ব্রহ্মচারীজীর তথ্যমতে ‘মহাপ্রভু শ্রীকৃষ্ণ-চৈতন্যদেব লাঙ্গলবন্দে এসে স্নান করেছিলেন। এমনকি ১৯০১ খ্রিস্টাব্দে পবিত্র ‘বুধাষ্টমী’ যোগে জননী ভুবনেশ্বরী দেবীকে নিয়ে স্বামী বিবেকানন্দ, নেপালের রাজা, মহাত্মা গান্ধীসহ বহু সাধু-সন্ন্যাসী এ তীর্থ স্নান করেছেন বিভিন্ন সময়ে। তার মতে ত্রেতাযুগে জমদগ্নি নামে এক বিখ্যাত মুনি ছিলেন। রেণুকার সাথে তার বিবাহ হয়েছিল।

 

লাঙ্গলবন্দ

 

তাদের ছিল পাঁচ পুত্র সন্তান। কনিষ্ঠ সন্তানের নাম হলো পরশুরাম, বিষ্ণুর দশম অবতারের মধ্যে ষষ্ঠ অবতার ছিলেন তিনি। একদিন মুনি জমদগ্নি স্ত্রী রেণুকার জল আনতে বিলম্বের কারণ জিজ্ঞাসা করেন এবং যোগবলে তার মানসিক বিকৃতির কথা জানতে পারেন। প্রচণ্ড রেগে গিয়ে মুনি রূঢ়স্বরে তার পুত্রদেরকে তাদের মাকে হত্যা করার আদেশ দেন। অগ্নিশর্মা মুনির উক্ত আদেশ প্রথম চার পুত্রের কেউই পালন করতে রাজি হয়নি। পরে পঞ্চমপুত্র পরশুরাম পিতার আদেশে কুঠার দিয়ে মায়ের দেহ দ্বিখণ্ডিত করে ফেলেন। কিন্তু পরশুরামের হাতে ঐ কুঠারটি লেগে যায়। এই সমস্যা সমাধানে পিতৃ আজ্ঞায় পরশুরাম তীর্থ পরিভ্রমণে বের হয়ে তীর্থ ভ্রমণ করতে লাগলেন। পরশুরাম ব্রহ্মকুণ্ডে স্নান করার সাথে সাথে তাঁর হাতের কুঠারটি পড়ে যায় এবং সর্বপাপ থেকে মুক্তি লাভ করেন।

 

ধারনা করা হয় সময়টি ছিল চৈত্র মাসের শুক্লা অষ্টমী তিথি বুধবার পুনর্বসু নক্ষত্র। পরে পিতৃ আজ্ঞায় ব্রহ্মকুণ্ডের জলধারাকে এই পৃথিবীতে নিয়ে আসার জন্য পরশুরাম, হাত থেকে পড়ে যাওয়া কুঠারটি দিয়ে ব্রহ্মকুণ্ডের জলধারাকে হিমালয়ের পাদদেশ পর্যন্ত আনতে সক্ষম হন। তার পর লাঙ্গল দিয়ে মাটি কর্ষণ করে হিমালয়ের পাদদেশ থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলার ‘লাঙ্গলবন্দ’ পর্যন্ত নিয়ে আসেন। অনেকের মতে ‘ লাঙ্গলবন্দ’ নামটিও এসেছে সেখান থেকেই। জায়গাটিতে স্নানের সময়ে হাজারও মনুষ্যত্ব আগমন ঘটে। সনাতন ধর্মাবলম্বীরা একে পবিত্র স্থান হিসেবে মানেন।

  •  লাঙলবন্দ
  •  Bangladesh
  •  নারায়ণগঞ্জ,বন্দর
  •  Tour Tips
     Tour Tips
     pdf file
     For requirements
  •  Bus
  •  Great
  •  300-400
  •  Don't Need

0 comments

Leave a comment

Login To Comment