Image

সাদাপাথর,উৎমাছড়া,তুরং ছড়া,বিছানাকান্দি ভ্রমণ

সময়ঃ ২ রাত ১ দিন
সংখ্যাঃ ২৩ জন

বাজেট ট্যুর যারা করেন তারা বর্তমান এবং গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাবেন এই ব্লগ থেক।

🐎🐎 যাতায়াত জনপ্রতিঃ

১) ঢাকা টু সিলেট (উপবন এক্সপ্রেস)-২৬৫ টাকা
২) সিলেট স্টেশন টু জিন্দাবাজার পানসি হোটেল লেগুনা-২০ টাকা
৩) জিন্দাবাজার টু মজুমদারি বাস স্ট্যান্ড সিএনজি- ২০ টাকা
৪)মজুমদারি বাস স্ট্যান্ড টু ভোলাগঞ্জ ১০নং ঘাট বাস রিজার্ভ - ৮০ টাকা
৫)ভোলাগঞ্জ ১০নং ঘাট টু ট্রলারে সাদাপাথর অাপডাউন -১০০ টাকা

সাদাপাথর থেকে ফেরার পথে ভোলাগঞ্জ ১০ নং না গিয়ে বলবেন দয়ারবাজার নামিয়ে দেওয়ার জন্য,

৬) দয়ার বাজার টু চড়ারবাজার উৎমাছড়া- ৪০ টাকা
৭) উৎমাছড়া টু তুরং ছড়া ছোট পিচ্ছি গাইড- ৬ টাকা
৮) তুরংছড়া টু বিছানাকান্দি মোটরসাইকলে ৫০ টাকা
৯) বিছানাকান্দি থেকে হাদারপার নৌকা - ৪৫ টাকা
১০) হাদারপার টু সিলেট কদমতলী লেগুনা- ১২০ টাকা
১১) সিলেট টু ঢাকা - ৪৭০ টাকা

মোটঃ ১২১৬ টাকা( খাওয়া খরচ বাদে)

👻👻👻প্লেসগুলির সৌন্দর্যের কথা সবাই পোস্টে দেয় কিন্তু অামি সুবিধার থেকে অসুবিধার কথা বলবো এতে করে অাপনি যেন সমস্যা গুলির জন্য অাগে থেকে প্রস্তুত থাকেন।

#সিলেট_স্টেশন_টু_জিন্দাবাজারঃ শুরুতেই বলে রাখি, সিলেট ইকুয়াল টু সিডিকেটের রাজত্ব। স্টেশনে নামতে পারবেন না এর মধ্যেই দেখবেন সকল সিএনজি+ লেগুনা ড্রাইভার অাপনাকে ট্যুর প্লান দিতে ব্যাস্ত। অাপনি কোথায় যেতে চান না চান তার কোন দামই নাই। তারা যেটা বলবে সেটাই অাপনাকে করতে হবে এমন ভাব৷ ভাড়া জন প্রতি ২০ টাকা চাইবে ৮০ টাকা। অাপনাকে সেইরকম ঘাড় ত্যাড়ার পরিচয় দিতে হবে।

#জিন্দাবাজার_পানসি_হোটেল_টু_মজুমদারী_বাস_স্ট্যান্ডঃ সকালর নাস্তা পানসিতে করে বের হতে পারবেন না অাবার দেখবেন সেইম সিন্ডিকেট সিএনজি অার লেগুনার৷ অাপনাকে এবার ওরা বুঝাবে ওদের ছাড়া অাপনি ভোলাগঞ্জ যেতেই পারবেন না। মজুমদারী বাস স্ট্যান্ডে যেতে অাবার ৮০ টাকা অার অন্য কোন লেগুনা বা সিএনজি তে যেন না যেতে পারেন এই জন্য অাপনার পিছু এরা ছাড়বে না৷ অাপনাকে একটু দৌর্য্য দরে একটু চেস্টা চালাতে হবে।

#মজুমদারি_বাস_স্ট্যান্ড_টু_ভোলাগঞ্জ_১০নং_ঘাটঃ এখানে তেমন কোন কথা বাড়াতে হয়ই নাই কারন বাসের ভাড়া ভোলাগঞ্জ পর্যন্ত ৬০ টাকা অাবার সেখান থেকে ১০নং ঘাট পর্যন্ত ১০ টাকা। বাস মালিক ৮০ টাকা করে চাইসে জনপ্রতি একবারে রিজার্ভ। বাসে বসতে পারে ৩০ জনের মতো। গ্রুপ যদি বড় হয় এর থেকে রিল্যাক্স ভাবে যাওয়া সম্ভব না।

#সাদা_পাথরঃ এখন পানি কম থাকায় স্পট থেকে একটু দূরে অাপনাকে নামতে হবে৷ সাদাপাথরে গোসল শেষ হওয়ার অন্তত ২০ মিনিট অাগে অাপনাকে মাঝি কল করে অাসতে বলতে হবে, না হলে অাপনাকে ফেরার ঘাটে অনেকক্ষন বসে থাকতে হবে৷ কারন ওরা অাপনাকে নামিয়ে দিয়ে অাবার ভোলাগঞ্জ ঘাটে খেপ নিতে৷ তাই সময় বাচাতে হলে এটা করতে হবে৷ সাদাপাথরে পানি কম থাকায় স্রোতও কম অবার পানিও সচ্ছ পাবেন। সকাল সকাল এখানে যাওয়া উত্তম কারন পর্যটকদের ভীর বাড়ে বেলা বেড়ার সাথে সাথে অার জায়গাটাও রোদের তাপে উত্তপ্ত হতে থাকে।

#উৎমাছড়াঃ দয়ারবাজার থেকে উৎমাছড়াতে কথা বাড়াতে হয় নি। রাস্তার অবস্থা সুবিধার না এই পথে। অার এখানে এখন পানিও তেমন নেই।

#উৎমাছড়া_টু_তুরংছড়াঃ অামরা অাভাস পেয়েছিলাম এই পথটা হয়ত ট্র্যাকিং পথ হওয়ায় সুবিধা হবে। অার সকালে জানতে পারলাম দেশের কোথাও বিজিবি অার বিএসএফের সাথে ফায়ারিং চলাকালিন সময় এক বিএসএফ সদস্য নিহিত হয়েছে সেজন্য এখানকার পরিবেশ থমথমে। তাই চটজলদি এক পিচ্চিকে গাইড হিসেবে নিয়ে নেই সে দাবি করে তাকে ১৫০ টাকা দিতে হবে অামরা রাজি হয়ে হাটা শুরু করি। ট্র্যাকিংটা খুব উপোভোগ্য ছিলো কারন পথটা খুবেই ন্যাচারালই নেই কোন চিপছের খোসা, খালি বোতল৷ খুব একটা লোকজন এই ট্র্যাকিং করে না৷

#তুরংছড়াঃ পানি একটু কম অাছে যেখানে অামরা গিয়েছিলাম, একটু সামনে গেলে পানি অাছে মোটামুটি তবে বর্ডারের যা অবস্থা তাতে অলরেডি ৩০ গজ ভীরতে ভারতে ভিতরে এই তুরংছড়া তাই অার সামনে যাওয়ার সাহস হয় নি।

#তুরংছড়া_টু_বিছানাকান্দিঃ তুরংছড়া থেকে বেশ কিছু দুরে বিছানাকান্দি যাওয়ার মোটরসাইকেল ট্যান্ড। এখানেও তেমন কথা বাড়াতে হয়ই।

#বিছানাকান্দিঃ
তুরং ছড়া থেকে বিছানাকান্দি অাসতে ১৫ মিনিট লাগবে৷ এখানেও এখন তেমন পানি নেই অার যে পরিমান নোংরা করেছে বোতল চিপস অার দোকান দিয়ে তা না হয় নাই বললাম । সারা বিকেল বিছানাকান্দিতে দিয়ে সন্ধ্যা হওয়ার অাগেই হাদারপারের উদ্দেশ্য রওনা দিবেন নৌকায় কারন ভালো ভিউ পাবেন৷ নৌকা রেট ভ্যারি করে, দামাদামি করে নিবেন।

#হাদারপার_টু_সিলেটঃ হাদারপার থেকে একটু হাটা লাগে সিএনজি এবং লেগুনা স্ট্যান্ডে যেতে অার সন্ধ্যারপর একেবারে অন্ধকার হয়ে যায় এখানটা। এখান থেকে ভাড়া ফিক্সড ১২০ টাকা কদমতলী বাস স্ট্যান্ড সিলেট৷

সতর্কতাঃ

বিছানাকান্দি বাদে জায়গাগুলি এখনও যথেস্ট সুন্দর অার পরিচ্ছন অাছে তাই চিপসের প্যাকেট অার খালি বোতল যেখানে সেখানে না ফেলি। অামরা গ্রপে বড় ছিলাম তাই হয়ত একটু বেশি সিন্ডিকেটের সিকার হয়েছি অার পর্যটন কেন্দ্রে এমন হয় সেটা জানি তবে এখানে একটু বেশি ঘাড় ত্যাড়ার পরিচয় দিতে হইছে। ছোট জীবনের প্রথম ট্র্যাভেলিং পোস্ট, ভুল হলে ক্ষমা সুলভ দৃস্টিতে দেখবেন 

0 comments

Leave a comment

Login To Comment